rss

বৃহস্পতিবার, ২৪ জুলাই, ২০০৮

চুম্বন ফিরিয়ে নিলে

আমার ধুমপানের অভ্যাস ছিলো, একটু বেশিই ছিলো।
সিগারেটের প্যাকেটের গায়ে সংবিধিবদ্ধ সতর্কীকরণ পড়ে
ক্ষতিকর অভ্যাস হিসেবে মেনে নিলেও, ছাড়তে পারিনি।
তুমি বলেছিলে, ফুসফুস পোড়ানো যন্ত্রণাটা ছেড়ে দিতে;
বিনিময়ে দেবে হাজারো চুম্বন।
আমিও ভেবেছিলাম একটি সিগারেটের
বিকল্প হতে পারে একটি চুম্বন।

তাই একটি চুম্বনের জন্য ছুটে গিয়েছিলাম।
তোমার ঠোঁটের বাঁকা হাসিতে কোন সতর্কীকরণ বার্তা দেখিনি;
আমি নিশ্চিন্তে বিকল্প নেশায় মজে ছিলাম।

যখন তোমার কাছে যেতাম, মুখে থাকতো সুগন্ধী চকলেট;
পাছে তুমি টের পেয়ে যাও, অভ্যাসবশত: ভুল করে
এখনো দু’একটি টানা হয়ে যায়।

আমি সিগারেট ছেড়েই দিয়েছিলাম প্রায়;
পোড়া ফুসফুস ফিরে পাচ্ছিলো স্বাভাবিক ছন্দ।
তোমার চুম্বন কখনোই ফিরিয়ে নেবে না জেনে
স্বল্প সময়ে ফুসফুস পোড়ানোর বিচ্ছিরি নেশাটা কাটিয়ে উঠেছিলাম।

তখন কি জানতাম-
চুম্বন এক ভয়ংকর অগ্নি,
লকলকে শিখায় গ্রাস করে হৃদয়ের কোষগুচ্ছ;
ফিরিয়ে নিলে আত্মাসহ পোড়ায়!


- - -
মাইজদী, নোয়াখালী
১৯ জুন, ২০০৮


* লেখাটি একই সাথে আমার ব্লগে প্রকাশিত।

ফেইসবুকে যোগ করুন

সাম্প্রতিক লেখা

সাম্প্রতিক মন্তব্য

আর্কাইভ