rss

বৃহস্পতিবার, ২৪ জুলাই, ২০০৮

আষাঢ়ে স্বপ্ন

ইস্ত্রি করা কড়কড়ে শার্ট পরেছি ভাঁজ খুলে
জিন্স বেঁধেছি দামী বেল্টের বাঁধনে।
চকচকে পালিশ করা জুতোয় আলোর প্রতিফলন
প্রতিদিনকার চেয়ে দু’বার বেশি ছিটিয়েছি ফরাসী সৌরভ।
তারপর রিক্সা ডেকে মোলায়েম কন্ঠে দরদাম করে
হুড খুলে রাজকীয় ভঙ্গিতে যাত্রা শুরু।

এত আয়োজন শুধু আমাদের প্রথম দেখা, তাই।
তুমিও নিশ্চয়ই পথে, অথবা পৌছে গিয়েছো
চাইনিজ রেস্তোরাটার সামনে।
পাঁচটা বাজলো প্রায়;
হয়তো অধীর আগ্রহে কম্পমান প্রতীক্ষায়!

যেমন ভাবছি তেমনটিই দেখতে তুমি!
ভাবছি আর চলছি... চোখের সামনে দিয়ে হেঁটে যায় কতজন,
ভালো করে কাউকেই লক্ষ্য করি না।
আমি শুধু আজ তোমাকে দেখবো।

তোমার আজ নীল শাড়ী পরার কথা;
রাস্তার সমস্ত নীল রঙা পোশাকের দিকে আড়চোখে চাই-
পাশ কাটিয়ে যে যাচ্ছে, সে কি তুমি?
তোমার হাতে নীল চুড়ি থাকার কথা,
সব নীল চুড়ি পরা হাতের দিকে তাকাই-
চুড়ি হাতে শব্দ করছে যে, সে কি তুমি?

হৃদস্পন্দন মিনিটে দু’চারটি ব্যর্থ হচ্‍ছে উত্তেজনায়।
নির্দিষ্ট স্থানে পৌছালাম প্রায়; ঐতো তুমি!
দাঁড়িয়ে আছো ঠায়, ভীষণ রকম সলজ্জ ভঙ্গি।
তোমার পাশ ঘেঁষে দাঁড়াই।
হাত বাড়ালেই তুমি,
সমস্ত প্রতীক্ষার আজি হলো অবসান।

আমি হাত বাড়িয়ে দিই,
কিছুটা ইতস্তত করে তুমিও।
আমরা পরস্পরের হাত ধরে দাঁড়িয়েই থাকি... দাঁড়িয়েই থাকি...
যতক্ষণ না আষাঢ়ের মেঘমালা টিনের চালে
মৃদু জলপ্রপাতের ধারার মত গড়িয়ে পড়ে
টুপটাপ শব্দে ভোর রাত্রির ঘুম ভাঙিয়ে দেয়!


- - -
মাইজদী, নোয়াখালী
২৬ জুন ২০০৮
মাঝরাত

ফেইসবুকে যোগ করুন

3 টি মন্তব্য:

রাশেদ on ৩ আগস্ট, ২০০৮ ৮:০১ AM বলেছেন...

বেশ সুন্দর কবিতা। :)

মুকুল on ৩ আগস্ট, ২০০৮ ১১:১৭ AM বলেছেন...

রাশু আমার এই ব্লগের খোঁজ পাইলা ক্যাম্তে? :-)

রাশেদ on ৪ আগস্ট, ২০০৮ ১১:২২ PM বলেছেন...

হা হা! এইটা কোন ব্যাপার নাকি! :P :P

সা.ইনে তোমার লিঙ্কস এ দেখলাম। :)

সাম্প্রতিক লেখা

সাম্প্রতিক মন্তব্য

আর্কাইভ