rss

মঙ্গলবার, ২০ অক্টোবর, ২০০৯

"ডে লাইট সেভিংস" সিদ্ধান্তটি আসলে কার ?


গত ১৯ জুন যখন সময় গণনায় ডে লাইট সেভিংস পদ্ধতি চালু হলো দেশে, খটকা লাগলেও সাধুবাদ জানিয়েছিলাম। সাধুবাদ জানিয়েছিলাম কারণ নতুন চিন্তা গ্রহণ করার মানসিকতা সরকার ধারণ করছে তাই। খটকা লেগেছিলো এই কারণে যে যে লাইট সেভিংস এর এর মত টেকনিক্যাল একটা বিষয় বুঝার মত জ্ঞান আমাদের মূর্খ রাজনীতিবিদদের হলো কি করে সেটা ভেবে ! সে যাই হোক। সময় এক ঘন্টা এগিয়ে দেয়া হলো। কিন্তু এখন কবে আবার আগের সাথে এক ঘন্টা সমন্বয় করে পিছিয়ে দেয়া হবে সে সম্পর্কে সরকারের কোন সুস্পষ্ট ঘোষণা পেলাম না। ইতোমধ্যেই শীতকাল ঘনিয়ে এসেছে। রাতের দৈর্ঘ্য বাড়ছে। বাস্তবিক কারণে অসুবিধায় পড়ে অফিসাগামী মানুষ, স্কুলগামী শিশুরা সময় এখনো না পাল্টানোর কারণে সরকারের উপর ক্ষোভ প্রকাশ করছে। অফিসে, ব্লগে, ফেসবুকে প্রচুর মানুষ সরাসরি ক্ষোভ প্রকাশ করছে, সরকারকে গালাগালি করছে। কিন্তু তারপরও সরকারের কাছ থেকে কোন সুস্পষ্ট ঘোষণার লক্ষণ দেখা যাচ্ছে না। তখনই পুরোনো সন্দেহটা আবার ফিরে এলো মনে।


আমাদের সিদ্ধান্তগুলো কি আসলেই আমরা নিই? ডে লাইট সেভিংস এর বিষয়ে সরকারের মন্ত্রীরাই ঠিকমত বুঝে বলে মনে হলো না। তাহলে ঘড়ির কাটা আগিয়ে দেবার ত্বরিৎ সিদ্ধান্তটাই বা কিভাবে নিলো? কে নিলো?
ডে লাইট সেভিংস চালু হওয়ার পর কম্পিউটারের ঘড়ি সমন্বয় করার জন্য মাইক্রোসফট একটি প্যাচ রিলিজ করে। আমি প্যাচটি ডাউনলোড করে নিই। তাই স্ব্য়ংক্রিয়ভাবে ঘড়ির সময় সিনক্রোনাইজ হয়ে যায়। প্যাচটিতে ঘড়ির কাটা স্বয়ংক্রিয়ভাবে আবার ঠিক করার সময় দেয়া আছে ৩১ ডিসেম্বর। অর্থাৎ আগামী ৩১ ডিসেম্বর রাত ১১ টায় ঘড়ির কাটা ১ ঘন্টা পিছিয়ে নেয়া হবে।

এখন প্রশ্ন হলো, মাইক্রোসফট এই তথ্য কোত্থেকে পেলো? বাংলাদেশের সময় কখন আগাবে, কখন পিছাবে- মাইক্রোসফটের কাছে এই তথ্য আছে, অথচ সরকারের মন্ত্রীরা জানে না, এর পেছনে রহস্য কী? নাকি রাজনৈতিক সকল সিদ্ধান্তের মত এই সিদ্ধান্তটাও পশ্চিমা প্রভু্দের কাছে থেকেই এসেছে ? দেশের নাগরিকদের এই বিভ্রান্তিতে রাখার পেছনে রহস্যটা কী?

নাকি আমিই বোকার মত বেশি বেশি ভাবছি !!!

ফেইসবুকে যোগ করুন

2 টি মন্তব্য:

শফিকুল ইসলাম 'টুটুল' on ২০ অক্টোবর, ২০০৯ ১২:০৮ PM বলেছেন...

সরকারের আপাতত ডে লাইট টাইমটেবিল বদলানোর কোন ইচ্ছা নাই বলে মনে হচ্ছে... ইতিমধ্যে নতুন অফিস সময়সূচী ঘোষনায় কিছুটা কনফিউজড.. এটা কি শীকালীন সময়সূচী বিবেচনায় এনে করা হয়েছে? নাকি আবার অফিস সিডিউল বদলাবে ...

চারিদিকে বিয়াফক গিয়ানজাম :(

শহীদুল ইসলাম মুকুল on ২০ অক্টোবর, ২০০৯ ১২:১২ PM বলেছেন...

টুটুল ভাই, অফিস টাইম যদি একঘন্টা পিছিয়েই দেয়া হয়, তাহলে ঘড়ির কাটা আগের মত করে দিলেই তো হয়! নাকি ঘড়ির কাটা পাল্টানোর সিদ্ধান্তটা ৩১ ডিসেম্বরই! ;-)

সাম্প্রতিক লেখা

সাম্প্রতিক মন্তব্য